কে জিতবে বলুন তোঃ ইংল্যান্ড বনাম অস্ট্রেলিয়া

0
175
কে জিতবে বলুন তোঃ ইংল্যান্ড বনাম অস্ট্রেলিয়া

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর এই প্রথম মাঠে নামতে যাচ্ছে বিশ্বক্রিকেটের পরাশক্তি অস্ট্রেলিয়া। আবার, ওইদিকে করোনা এর ধাক্কা কাঁটিয়ে উঠে বেশ অনেকদিন যাবতই খেলে যাচ্ছে আরেক পরাশক্তি ইংল্যান্ড। এবার, ইংল্যান্ডের মাটিতে দুই চিরশত্রু দেশ নামছে টিটোয়েনটি সিরিজে। প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া জেতার সম্ভাবনাই বেশি। আসুন, দেখি ঠিক কি কি কারণে অস্ট্রেলিয়া জেতার চান্স বেশি ইংল্যান্ডের চাইতে!

১। দলের র‍্যাংকিং – অস্ট্রেলিয়া বর্তমানে টিটোয়েনটি টীম র‍্যাংকিংয়ে ৫২৮৫ পয়েন্ট নিয়ে প্রথম স্থানে অবস্থান করছে। তাদের রেটিং ২৭৮। অন্যদিকে, ইংল্যান্ডও অবশ্য পিছিয়ে নেই। তারা ২য় স্থানে অবস্থান করছে ৫০৮৩ পয়েন্ট নিয়ে। আর তাদের রেটিং ২৭৬।

২। হোম অ্যাডভান্টেজ – অস্ট্রেলিয়া আর ইংল্যান্ডের মধ্যকার এই টিটোয়েনটি সিরিজটি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ইংল্যান্ডের মাটিতে। সুতরাং, স্বাভাবিকভাবেই ইংল্যান্ড বাড়তি সুবিধা পাবে নিজেদের মাঠে খেলার।

৩। বর্তমান ফর্ম – দুই দলেরই বর্তমান ফর্ম যথেষ্ট সমীহজাগানিয়া। ইংল্যান্ড তাদের শেষ ৫ ম্যাচের ৩ টিতেই জয়লাভ করেছে আর অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়া জয় পেয়েছে ৪টিতে। এই পরিসংখ্যান থেকে বোঝাই যাচ্ছে কেউ কারও চাইতে কম নয়!

৪। মুখোমুখি ফলাফল – এখানেও এগিয়ে ক্যাঙ্গারুরা। আমরা যদি দুই পরাশক্তির শেষ ৫ ম্যাচের ফলাফলের দিকে চোখ বুলাই তাহলে দেখা যায় – অস্ট্রেলিয়া ৩ ম্যাচে আর ইংল্যান্ড ২টি ম্যাচে জয়লাভ করেছে।

৫। মাঠের অবস্থা – ইংল্যান্ড বনাম অস্ট্রেলিয়া ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে ইংল্যান্ডের রোজ বউল স্টেডিয়ামে। মাঠটি মূলত বোলিং ফ্রেন্ডলি।

৬। প্লেয়ার এনালাইসিস –

ব্যাটসম্যান এনালাইসিস

ইংল্যান্ডের অন্যতম টপ ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্ত এর এভারেজ ২৭.৮৮ আর স্ট্রাইক রেট ১৩৯.৪২। আরেক টপ ব্যাটসম্যান জোস বাটলারের এভারেজ ২৬.৬৮ আর স্ট্রাইক রেট ১৩৯.৬৮।

অস্ট্রেলিয়ার অন্যতম টপ ব্যাটসম্যান এরন ফিঞ্চের এভারেজ ৩৮.২৫ আর স্ট্রাইক রেট ১৫৫.৮৭। আরেক টপ ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ারনারের এভারেজ ৩১.৫২ আর স্ট্রাইক রেট ১৪০.৪৮।

বোলার এনালাইসিস

ইংল্যান্ডের গতিদানব ও প্রধান পেসভোমরা জোফরা আরচারের এভারেজ ১৪.৫০ আর ইকনমি রেট ৭.২৫। আরেক বোলার ক্রিস জর্ডানের এভারেজ ২৪.২৬ আর ইকনমি রেট ৮.৬৬।

অন্যদিকে, অস্ট্রেলিয়ার গতিদানব প্যাট কামিন্সের এভারেজ ১৯.৮৬ আর ইকনমি রেট ৬.৮৭। আরেক গতিদানব মিচেল স্টার্কের এভারেজ ৫.২৫ আর ইকনমি রেট ৯১.৩০।

ইংল্যান্ড তাদের শেষ টিটোয়েনটি ম্যাচে পাকিস্তানের কাছে পরাজিত হলেও ট্রাই করবে এই ম্যাচের মাধ্যমে ঘুরে দাঁড়াতে। অপরদিকে, অস্ট্রেলিয়াও নিশ্চয়ই ছেঁড়ে কথা বলতে চাইবেনা! হাজার হোক, ম্যাচটি চিরশত্রু ইংল্যান্ডের বিপক্ষে! জেতাই তাদের ধর্ম! এছাড়াও, সর্বশেষ অ্যাশেজ সিরিজের ফলাফলও তাদের প্রেরণা যোগাবে। করোনাভাইরাস বিপর্যয়ের পর এটাই তাদের প্রথম সিরিজ। তবে, ইংল্যান্ড বেন স্টোকসকে মিস করবে।

৭। পিচ সাপোর্ট – রোজ বোলের পিচ সবসময়ই বোলারদের সাপোর্ট দেয় সাধারণত। এখানেও ব্যতিক্রম হবেনা। দুই দলেরই অনেক ভালো ভালো পেসার রয়েছে। সুতরাং, লড়াই হবে সমানে সমান।

এখন দেখা যাক, কোন দল শেষ পর্যন্ত সারভাইভ করে!

সুপ্রিয় পাঠকেরা, আপনাদের মতে কে শেষ পর্যন্ত জিততে পারে ম্যাচটি? কমেন্ট করে জানিয়ে দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here